সুস্থ দীর্ঘায়ু পেতে করণীয়

সব মানুষই চায় সুস্থ ও দীর্ঘ জীবন।এর জন্য যে কাজ গুলো করতে হয় তা করতে গিয়ে অনেকেই হোঁচট খান। কারণ অনেক ক্ষেত্রেই তা আমরা করতে পারি না বা আমাদের করা হয়ে উঠে না। তাই অনেক ক্ষেত্রেই এবং অনেক কারণেই আমাদের দৈহিক ও মানসিক ক্ষতির সম্মক্ষিন ও আমাদের হতে হয়।

বর্তমান শতাব্দীতে উন্নত ঔষধ, উন্নত স্যানিটেশন, নিরাপত্তা, কাজের পরিবেশ ও ব্যাক্তি সতর্কতার ফলে বিশ্বের প্রথম সাড়ির দেশ গুলুতে গড় আয়ু বৃদ্ধি পেয়েছে।

শুধুমাত্র দীর্ঘ জীবন নয় সুস্থ ও সুন্দর জীবন পাওয়ার জন্য কতগুলো নিয়ম মেনে চলা এবং অভ্যাস পরিবর্তন করা প্রয়োজন। আসুন জেনে নেই কোন নিয়ম বা অভ্যাস গুলো অনুসরণের করলে সুস্থ ও দীর্ঘ জীবন লাভ করা যায়:

  • শুরুতে ১০ মিনিট হাঁটুন। ২-৩ দিন পর সময় বৃদ্ধি করুন। এভাবে ১০-১৫-২৫ মিনিট থেকে ৩০ মিনিটে উন্নীত করুন।
  • সবুজ শাকসবজি, দেশীয় ও মৌসুমি ফলমূল প্রচুর পরিমাণে খেতে হবে।
  • লাল মাংসের পরিবর্তে মুরগির মাংস ও বিভিন্ন ধরনের মাছ খেতে হবে।
  • সপ্তাহে অন্তত ১ দিন নিরামিষ খেতে পারেন।
  • ফাস্ট ফুড ও প্রক্রিায়াজানত খাবার থেকে এড়িয়ে চলুন।
  • যতদূর সম্ভব সোডিয়াম ও অন্যান্য লবণ এড়িয়ে চলুন।
  • রান্নার ক্ষেত্রে পরিমিত লবণ ব্যবহার করতে হবে।
  • খাবার সময় আলগা লবণ গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

  • খাবার সংরক্ষণে লবণ ব্যবহার না করে লেবুর রস, কাঁচা রসুন, ভিনেগার ও সমলা ব্যবহার করুন।
  • যেকোনো খাবার কেনার ক্ষেত্রে পণ্যের প্যাকেটে সোডিয়ামের পরিমাণ দেখে অপেক্ষাকৃত কম সোডিয়ামসমৃদ্ধ খাবার কেনার চেষ্টা করতে হবে।
  • কায়িক পরিশ্রম করতে হবে, নিজের কাজ নিজে করার অভ্যাস করুন।
  • নিয়মিত হাঁটা, সাঁতার কাটা, সাইকেল চালানোর জন্য চেষ্টা করতে হবে।
  • নিকটবর্তী গন্তব্যে বা অফিসে হেঁটে বা সাইকেল চালিয়ে যাওয়ার অভ্যাস করুন।
  • দিনে অন্তত ১০ মিনিট সাধারণ ব্যায়াম করা উচিত।
  • লিফটের পরিবর্তে সিঁড়ি ব্যবহার করতে হবে।
  • ধুমপান ও মদ্যপান বা অ্যালকোহল একমদই গ্রহণ করা যাবে না।
  • দিনে ঘুমাবেন না, রাতে তারাতারি শুয়ে পরুন।
  • নুন্যতম ৬-৮ ঘন্টা দৈনিক ঘুমের প্রয়োজন।
  • মোবাইল, টেলিভিশন এবং অন্যান্য ইলেট্রনিক ডিভাইসের ব্যবহার কমিয়ে ফেলুন।
  • যেকোনো পরিস্থিতিতে সৃষ্টিকর্তার উপর ভরসা রাখুন।
  • আত্বীয়তার সুসম্পর্ক বজায় রাখুন।

  • কথাবর্তায় কর্কশ হবেন না।
  • রাগকে নিয়ন্ত্রণ করুন।
  • অন্যের সাথে ভালো ব্যবহার করুন।
  • অহংকার করবেন না।
  • লোকদের সাথে ধীরস্থির হয়ে শান্তভাবে কথা বলুন।
  • উচ্চস্বরে কথা বলবেন না।
  • পিতামাতার প্রতি দায়িত্বশীল আচরণ করুন।

ডা. মো: সফিউল্যাহ্ প্রধান

বাত ব্যথা প্যারালাইসিস ডিসএবিলিটি ও রিহেব-ফিজিও বিশেষজ্ঞ

ডিপিআরসি হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক ল্যাব লি:

১২/১ রিং-রোড, শ্যামলী, ঢাকা-১২০৭, (শ্যামলী ক্লাব মাঠ সমবায় বাজারের উল্টো দিকে)

সিরিয়ালের জন্য ফোন: ০৯ ৬৬৬ ৭৭ ৪৪ ১১ অথবা ০১৯৯-৭৭০২০০১

আরএম/ ২ জুন, ২০২১

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + 12 =

12/1 Ring Road, Shyamoli, Dhaka

09666 77 44 11

dprchospital@dprcbd.com